Bike

বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি দাম ২০২৪

বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি দাম ২০২৪: আমাদের দেশের বাইকারদের কাছে দৈনন্দিন জীবনে চলাচলের বাহন হিসেবে এই ১১০ সিসি মডেলের বাইকটির ব্যপক চাহিদা রয়েছে । কর্মজীবী, ব্যবসায়ী সহ সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের কাছে এই বাজাজের ১১০ সিসি বাইকটি দারুন ভাবে সমাদৃত। বাইকটির এলিগেন্ট ডিজাইন, সাধারণ স্ট্রাকচার সকল বয়সী রাইডারের সাথে খুব ভালভাবে মানিয়ে যায়। আধুনিক জীবনযাত্রার অন্যতম সঙ্গী মোটর সাইকেল। বর্তমানে ছোট বড় সকলেই মোটরসাইকেল চালাতে ভালবাসে। তবে বাজারে অনেক ব্রান্ডের মোটরসাইকেল রয়েছে সেগুলোর মধ্যে ভালো মাইলেজ পাওয়ার জন্য বাজাজ ডিসকভার একটি জনপ্রিয় মোটরসাইকেল মডেল, যা বাজাজ আটোমোবাইলস লিমিটেড এবং একটি মোটরসাইকেল নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান বাজাজ আটোমোবাইলস দ্বারা তৈরি হয়। ডিসকভার সিরিজের মোটরসাইকেল ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত উন্নত প্রযুক্তি এবং সুরক্ষা, ডিজাইন সমৃদ্ধ, এবং প্রতিদিনের ব্যবহারে উপযোগী হয়। এই সিরিজের মধ্যে ১০০ সিসি, ১১০ সিসি, ১২৫ সিসি, ১৫০সিসি, ২০০ সিসি ও ২৫০ এক অনন্য মোটরসাইকেট।

বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি মোটরসাইকেলটি বাংলাদেশের বাজারে তার অসাধারণ ফিচারস এবং দুর্দান্ত মাইলেজের জন্য খুবই জনপ্রিয়। এটি বাজাজ অটো লিমিটেড কর্তৃক নির্মিত এবং ভারতের পুনেতে তাদের প্রধান কারখানায় উৎপাদিত হয়। বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি তার সুন্দর ডিজাইন, আরামদায়ক সিটিং পজিশন এবং শক্তিশালী ইঞ্জিনের জন্য বাজারে এক বিশেষ স্থান করে নিয়েছে।

এই মোটরসাইকেলটির ইঞ্জিন ১১৪.৫ সিসি, এয়ার-কুলড, সিঙ্গেল-সিলিন্ডার, যা সর্বোচ্চ ৮.৬ বিএইচপি শক্তি এবং ৯.৮১ এনএম টর্ক উৎপন্ন করে। এটির ইলেকট্রিক স্টার্ট সিস্টেম এবং পেট্রল ইঞ্জিন রয়েছে যা এটিকে ব্যবহারে আরও সুবিধাজনক করে তোলে। ডিসকভার ১১০ সিসি এর গিয়ারবক্স হল ৪-স্পিড ম্যানুয়াল যা সহজে গিয়ার পরিবর্তনে সাহায্য করে।

এই বাইকের ডিজাইন খুবই আধুনিক এবং চোখ ধাঁধানো। এর এলইডি ডিআরএলস (ডেটাইম রানিং লাইটস) এবং এলইডি টেইল লাইট এটিকে একটি আধুনিক আভাস দেয়। সামনে এবং পিছনে ডিস্ক ব্রেক না থাকলেও, এর ড

্রাম ব্রেক সিস্টেম নিরাপদে থামার জন্য যথেষ্ট কার্যকর। তাছাড়া, টেলিস্কোপিক ফ্রন্ট সাসপেনশন এবং রিয়ার নাইট্রক্স সাসপেনশন সিস্টেম এটিকে খুব আরামদায়ক এবং মসৃণ রাইড প্রদান করে।

বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি এর মাইলেজ অসাধারণ। এটি প্রায় ৬৫ থেকে ৭০ কিলোমিটার প্রতি লিটার পেট্রলে চলতে পারে, যা এটিকে দীর্ঘ দূরত্বের ভ্রমণের জন্য আদর্শ বানায়। এর ফিউল ট্যাঙ্কের ক্ষমতা হল ৮ লিটার, যা দীর্ঘ সময় ধরে রাইডিং এর জন্য পর্যাপ্ত।

এই মোটরসাইকেলটি বিশেষত তার বহুমুখীতা, আরাম এবং অর্থনৈতিক দক্ষতার জন্য প্রশংসিত। চাকরিজীবীদের কাছে এটি খুবই জনপ্রিয়, কারণ এটি তাদের দৈনিক অফিস যাতায়াতের জন্য একটি নির্ভরযোগ্য এবং সাশ্রয়ী বাহন হিসেবে কাজ করে। এছাড়াও, এর সুন্দর ডিজাইন এবং উন্নত ফিচারস তরুণ প্রজন্মের মধ্যেও এটিকে আকর্ষণীয় করে তোলে।

সব মিলিয়ে, বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি একটি উত্কৃষ্ট মোটরসাইকেল যা দুর্দান্ত মাইলেজ, আরাম, এবং ব্যবহারে সুবিধা প্রদান করে। এর সাশ্রয়ী মূল্য এবং নির্ভরযোগ্যতা এটিকে বাংলাদেশের বাজারে একটি জনপ্রিয় পছন্দ করে তোলে।

বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি মোটরসাইকেলের মধ্যে ডিস্ক ব্রেক ও ড্রাম ব্রেক সংস্করণ উপলব্ধ থাকে। এই মোটরসাইকেলগুলি বাংলাদেশে যারা দামী গাড়ী কিনতে চান তাদের জন্য উপযোগী। এই মোটরসাইকেলগুলির ইঞ্জিনের দ্বারা বেশ ভালো মাইলেজ পাওয়া যায় এবং প্রাথমিক রাইডারদের জন্য এটি উপযোগী হয়। তবে আপনি যদি বাজাজ ডিসকভার ১২৫ সিসি দাম ২০২৩ দেখতে চান এখানে ক্লিক করুন বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি মোটরসাইকেলের মূল বৈশিষ্ট্যের মধ্যে একটি ড্রাম ব্রেক, মোটরসাইকেলের ডিজাইন এবং উন্নত সুরক্ষা বৈশিষ্ট্য। বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি মোটরসাইকেলের ইঞ্জিনের স্পেসিফিকেশন ও অন্যান্য বৈশিষ্ট্যের সম্পূর্ণ নিচে দেওয়া হলো। আপনার কি এই শীতের হিটার দরকার? এখানে রয়েছ ওয়ালটনের রুম হিটার। অথবা গিজার

বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি

বাংলাদেশে জনপ্রিয় মোটরসাইকেল গুলোর একটি বাজাজের ডিসকভার সিরিজের ১১০ সিসি মডেলটি। বর্তমান সংস্করণে বাইকটির গ্রাফিক্সে কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। এতে বাইকটি দেখতে এখন আরো আকর্ষণীয় লাগে। এছাড়াও বাইকটিতে অ্যানালগ এবং ডিজিটালের কম্বিনেশনে ফ্রন্ট প্যানেল যুক্ত করা হয়েছে। বাজারে এই বাইক মডেলের দুইটি ভেরিয়েন্ট পাওয়া যায়;  ড্রাম  এবং ডিস্ক  ভেরিয়েন্ট। নিচে এই বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি দাম ২০২৩ ও মূল সব ফিচর সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আলোকপাত করা হলো।

বৈশিষ্ট্যমূল তথ্য
মডেলবাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি
বর্তমান মূল্যড্রাম : ১,৪৩,৬০০ টাকা
ডিস্ক – ১,৪৯,০০০ টাকা
ইঞ্জিন টাইপএয়ার কুল এনজিন (Air-Cooled)
পাওয়ার৮ বিএচপি @ ৭,৫০০ আরপিএম
টর্ক৯.৫ এনমি @ ৫,৫০০ আরপিএম
ট্রান্সমিশন৫-স্পীড ম্যানুয়াল
ম্যাক্স স্পীড৯০ কিমি/ঘণ্টা (আপেক্ষিক)
Fuel ট্যাঙ্ক ক্যাপাসিটি৮ লিটার
Brake সিস্টেমফ্রন্ট ডিস্ক ব্রেক, রিয়ার ড্রাম ব্রেক
সাসপেনশনফ্রন্ট টেলিস্কোপিক ফোর্ক, রিয়ার স্বিংারম
টায়ার সাইজফ্রন্ট: ২০/৮০-১২, রিয়ার: ২০/৮০-১২
ওভারল লেংথ১,৯৫৫ মিমি
ওভারল ওইডথ৭৪৫ মিমি
ওভারল হাইট১,০৫০ মিমি
সিট হাইট৭৩০ মিমি
ওভারল ওইট৩৫০ কেজি
স্টার্টিংইলেকট্রিক এন্ড কিক
ফিউল Supplyকার্বারেটর
ব্যাটারি১২ভোল্ট, 5 Ah MF,  ৩ এইচ
লাইটিংহেডলাইট, টেইল লাইট, টার্ন সিগন্যাল, ইন্ডিকেটর

আপনি যদি বই পড়তে ভালবাসেন তাহলে এখানে থেকে আপনি বইয়ের পিডিএফ ডাউনলোড করতে পারেন : পিডিএফ আর্কাইভ বিডি . কম

বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি দাম ২০২৪: এর সুবিধা:

  • এই গাড়িটির মাইলেজ খুব ভালো, জ্বালানি সাশ্রয়ী
  • গাড়িটি ইঞ্জিন টেকসই এবং দীর্ঘস্থায়ী, তাই পার্ফরমেন্স খুব ভালো
  • ১১০ সিসির এই বাইকের সাসপেনশন এবং সিটিং পজিশন ভালো
  • এই কোম্পানির সার্ভিসিং সেন্টার অনেক এবং প্রায় সর্বত্র বাইকটির বিভিন্ন পার্টস পাওয়া যায়।

বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি এর অসুবিধা

  • ১১০ সিসি এই ডিসকভার বাইকের চেইন নিয়ে প্রায় সব বাইকার অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন
  • ডিসকভার বাইকের ওয়েট ডিস্ট্রিবিউশন নিয়েও কিছু বাইকারের অভিযোগ রয়েছে।
  • বাইকটির হেডলাইটে আলো পর্যাপ্ত নয়।
  • এই বাইকটি ইনস্ট্রুমেন্ট বা কনসোল প্যানেলে যথেষ্ট ফীচার নেই
  • বেশি গতিতে বাইকটি ভাইব্রেশন করে।

বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি মোটরসাইকেলে নিম্নলিখিত মুখ্য বৈশিষ্ট্যগুলি রয়েছে :

  1. ইঞ্জিন: বাজাজ ডিসকভার ১১০ সিসি, ৪-স্ট্রোক ইঞ্জিন থাকে।
  2. মোটরসাইকেল ডিজাইন: ডিসকভার ১১০ সিসি মোটরসাইকেল একটি মডার্ন ডিজাইন সহযোগী এবং স্থিতিশীল ডিজাইন দেখায়।
  3. শক্তি: মোটরসাইকেলে ৮.৪৬ bhp শক্তি তৈরি করতে পারে এবং মোটরসাইকের শীর্ষ টর্ক ৯.৮১ Nm প্রাপ্ত করতে পারে।
  4. ব্রেক সিস্টেম: ডিসকভার ১১০ সিসি মোটরসাইকেলে ফ্রন্ট ডিস্ক ব্রেক সিস্টেম থাকে যা সুরক্ষার জন্য সাহায্য করে।
  5. ইঞ্জিন কুলিং: মোটরসাইকেল এয়ার কুলিং ইঞ্জিনের সাথে সম্প্রদায় করে, যা ইঞ্জিনের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে এবং দ্রুত গতি চালিয়ে।
  6. স্টার্টিং মেথড: এই মোটরসাইকেলটি কিক এবং ইলেকট্রিক স্টার্টিং মেথড সহযোগী উপযোগ করে শুরু করা যায়।
  7. ইঞ্জিন কোম্প্রেশন রেটিও: ইঞ্জিনের কোম্প্রেশন রেটিও সম্প্রদায় করা থাকে, যা ইঞ্জিনের কার্বাইটরেটরে নিয়ন্ত্রণ রেখে তার কর্মক্ষমতা উন্নত করে।
  8. ইঞ্জিন কোম্প্রেশন রেটিও: ইঞ্জিনের কোম্প্রেশন রেটিও সম্প্রদায় করা থাকে

বাজাজ প্লাটিনা ১১০ সিসি দাম বাংলাদেশ ২০২৪টিভিএস রাইডার 125 বাংলাদেশ প্রাইস 2024হোন্ডা লিভো বাংলাদেশ প্রাইস

এছাড়াও বর্তমানে বাইকটিতে আধুনিক সব ফিচার রয়েছে। বাইকটি ক্রয়ের পূর্বে অবশ্যই দাম যাছাই করে নিবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *