ভিশন এয়ার কুলার দাম ২০২৪

ভিশন এয়ার কুলার দাম ২০২৪

গরম দিনের অসহ্য তাপ থেকে রেহাই পেতে এয়ার কুলার বেশ কাজের একটি জিনিস। বাড়ি হোক বা অফিস, স্বস্তির পরিবেশ তৈরি করতে এয়ার কুলারের জুড়ি নেই। এখন কথা হল, এই এয়ার কুলার কেন এত প্রয়োজনীয়? চলুন, আমরা এর কিছু কারণ আলোচনা করি।

প্রথমত, এয়ার কুলার প্রাকৃতিক বাতাস দিয়ে শীতলতা প্রদান করে। এতে করে ঘর বা অফিসের ভেতরের বাতাস তাজা এবং স্বাস্থ্যকর থাকে। এই প্রক্রিয়ায়, বাইরের গরম বাতাস এয়ার কুলারের ভেতর দিয়ে পানির সাথে সংস্পর্শে আসে এবং শীতল হয়ে ঘরে প্রবেশ করে।

দ্বিতীয়ত, এয়ার কুলার অনেক বেশি খরচ সাশ্রয়ী। এসির তুলনায় এর প্রারম্ভিক মূল্য এবং পরিচালনা খরচ উভয়ই কম। তাই এটি ব্যবহারে আপনার বিদ্যুৎ বিলে অনেক সাশ্রয় হয়।

তৃতীয়ত, এয়ার কুলার পরিবেশ বান্ধব। এটি কোনো হানিকর রিফ্রিজারেন্ট গ্যাস নির্গমন করে না, যা ওজোন স্তরের জন্য ক্ষতিকর। তাই পরিবেশের উপর এর প্রভাব অনেক কম।

চতুর্থত, এয়ার কুলারের ব্যবহার খুবই সহজ। এটি স্থানান্তর করা যায় এবং প্রয়োজন মতো ঘরের যেকোনো জায়গায় স্থাপন করা যায়। এর রক্ষণাবেক্ষণও বেশ সহজ।

পঞ্চমত, এয়ার কুলারে আর্দ্রতা বাড়ায়, যা খুব শুষ্ক আবহাওয়ায় বাস করার জন্য উপকারী। এতে করে চুল ও ত্বক শুষ্ক হয়ে যাওয়ার সমস্যা থেকে রেহাই মেলে।

এই কারণগুলো থেকে বোঝা যায়, এয়ার কুলার কেন একটি প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক যন্ত্র। এর ব্যবহারে আমরা নিজেদের জীবনযাত্রাকে আরও স্বাচ্ছন্দ্যময় ও স্বাস্থ্যকর করতে পারি।

আপনার আইফোনের সকল সমস্যার সমাধান পেতে ভিজিট করুন: iTunesBD.Com

ভিশন এয়ার কুলার দাম ২০২৪: বর্তমানে ভিশন এয়ার কুলারের দাম সাধারনত আপনার বাজেট ফ্রেন্ডলি। তবে আপনি ১২,০০০ টাকা – ১৩,০০০ টাকার মধ্যে একটি ভাল মানের এয়ার কুলার পেতে পারেন।

ওয়ালটন এয়ার কুলার দাম ২০২৪ভিশন এসির দাম ২০২৪সিঙ্গার এসির দাম ২০২৪

ভিশন এয়ার কুলার গুলোর বিশেষত্ব:

  • প্রতিটি এয়ার কুলারে রয়েছে ওয়াটার লেভেল ইনডিকেটর।
  • এছাড়াও থাকছে টারবো ব্লেডস।
  • প্রতিটি এয়ার কুলারে থাকছে মিষ্ট অপশন।
  • এছাড়াও থাকছে রিমোট কন্ট্রোল সুবিধা।
  • এয়ার কুলারগুলোতে আছে ডিসিটাল ডিসপ্লে।
  • শক্তিশালী মটর + পরিবেশ বান্ধব।
ভিশন এয়ার কুলার দাম, তালিকাসহ সংক্ষিপ্ত বিবরনী:
ওয়ালটন এয়ার কুলার

১। ভিশন এয়ার কুলারের নাম: VISION Evaporative Air Cooler 45L Super Cool

  • অটোমেটিক লেফ্ট-রাইট এয়ার ডিফ্লেকশন।
  • ওয়ার লেভেল ইন্ডিকেটর।
  • ইফেকটিভ এরিয়া: ৪০-৬০ M2
  • বাটন এন্ড সুইচ কন্ট্রোল।
  • ম্যাক্সিমাম এয়ারফ্লো : 6500 m3/hr
  • পাওয়ার : ১২০ ওয়াট।
  • ফ্যানের ধরন: ইভ্যাপোরেটিভ।
  • বাষ্পীয় ক্যাপাসিটি : 2000 ±5%mL/h
  • নয়েস লেভেল: ৬০।
  • রিমোট কন্ট্রোলিং সুবিধা।
  • ম্যানুয়ালি ওয়াটারিং।
  • আইস বক্স সুবিধা।
  • স্প্রিড লেভেল: Standard-Nature-Sleep
  • ওয়াটার ট্যাঙ্ক: ৩৫ লিটার।
  • ইফেকটিভ এরিয়া: ৪০০ বর্গ ফিট।
  • সুয়িং : Left-Right and Up-Down

– বর্তমান মূল্য: ১৩৬০০ টাকা।

২। ভিশন এয়ার কুলারের নাম: VISION Evaporative Air Cooler-35L Supper Cool

  • পাওয়ার: ১৫০ ওয়াট।
  • ভোল্টেজ: 220-240V,50Hz
  • ওয়াটার ট্যাঙ্ক: ২৭ লিটার।
  • হানিকম্ব ফিল্টার।
  • অটোমেটিক লেফ্ট রাইট সুয়িং
  • এয়ার ভলিয়ম : 4500m3/h
  • কভারেজ এরিয়া :25-40m²
  • ওয়ারেন্টি ১ বছর।

– বর্তমান মূল্য: ১২,৩২৫ টাকা।

এয়ার কুলার ব্যবহারের সঠিক নিয়ম

আপনি সঠিক যায়গায় এয়ার কুলারটি ইন্সটল করুন। এটি যাতে এমন একটি জায়গায় হয় যেখানে অন্যান্য কক্ষেও ঠান্ডা বাতাস পৌঁছাতে পারে।

প্রতিবার এয়ার কুলারটি চালু করার আগে তাতে বরফ পানি যোগ করুন। এবং নিয়মিতভাবে কুলিং প্যাডগুলি পরিষ্কার করুন, কারণ তাতে ধূলাবালি জমে যায়।

আপনি অবশ্যই সপ্তাহে অন্তত একবার প্যাড পরিষ্কার করার জন্য ব্রাশ ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও, পানি ট্যাঙ্ক নিয়মিতভাবে পরিষ্কার করুন এবং তাতে কোনও ফুটো বা ছিদ্র আছে কি না তা নিশ্চিত করুন।

ভিশনের অন্যান্য প্রডাক্ট:

১। ভিশন ব্লেন্ডার দাম ২০২৪

২। ভিশন রাইস কুকারের দাম কত ২০২৪

যে সমস্ত বিষয়ের প্রতি খেয়াল রেখে এয়ার কুলার কিনবেন?

দোলন ফাংশনঃ প্রথমেই দেখবেন এর দোলন ফাংশন। এটি যদি পাশাপাশি, উপরে এবং নীচে কাজ করে এবং সর্বত্র সমানভাবে বায়ু বিতরণ করতে সাহায্য করে। এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ যেখানে একই ঘরে বড় সংখ্যক লোক থাকে এবং প্রতিটি ব্যক্তি প্রবাহিত বাতাস পায়।

এয়ার ভলিউমঃ প্রতিটি এয়ার কুলারের ভলিউম আকার পরীক্ষা করুন, এটি যত বড় হবে ততো ভালো।

টার্বো ব্লোয়ারঃ কিছু কিছু এয়ার কুলারে টার্বো ব্লোয়ার থাকতে পারে যা আপনার প্রয়োজনে শক্তিশালী বাতাস সরবরাহ করতে পারে।

বাষ্পীভবন ক্ষমতাঃ এটি ঠান্ডা করার দ্রুততা নির্ধারণ করবে। বাংলাদেশে বড় অংশই গরম এবং আর্দ্রতা, তাই বাষ্পীভবন ক্ষমতা অধিক হলে ভালো।

সুগন্ধি ফাংশনঃ কিছু এয়ার কুলারে এই সুগন্ধি ফাংশন
থাকতে পারে যেখানে সুন্দর গন্ধ অথবা পারফিউম যোগ করা হতে পারে।

ডিসপ্লেঃ এলসিডি ডিসপ্লের সেটিংস চেক করতে এবং নিয়ন্ত্রণ করতে এটি অনেক সুবিধা দেবে।

টাইমারঃ যদি একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য কুলার চালাতে চান তবে এই ফাংশন প্রয়োজন।
এটি নির্ধারিত সময়ের পরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হবে।

নয়েজ লেভেলঃ এটি ফ্যানের আওয়াজকে মিনিমাইজ করতে পারে এবং ঘুমের ব্যাঘাত হ্রাস করতে পারে। যদি ঘরে শিশু থাকে তবে কম শব্দের এয়ার
কুলার ফ্যান অধিক উপযোগী হতে পারে।

এয়ার কুলার কি স্বাস্থ্যের জন্য ভালো?

হ্যাঁ, বিষেশজ্ঞদের মতে এয়ার কুলার এসির চেয়ে স্বাস্থ্যের জন্য ভালো বলে বিবেচনা করা হয়। এটি বাতাসে আর্দ্রতা অ্যাড করে অভ্যন্তরীণ বায়ুর গুণমান উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে। এটি শুষ্ক জলবায়ুতে বিশেষভাবে উপকারী বলে ধরা হয়। যেখানে কম আর্দ্রতা শুষ্ক ত্বক, শুষ্ক চোখ এবং শ্বাসকষ্টের মত রোগ ব্যাধি সৃষ্টি করতে পারে।

এয়ার কুলার চালু রেখে ঘুমানো কি ঠিক?

এয়ার কুলার  চালু রেখে সারারাত ঘুমালে ডিহাইড্রেশন সহ কিছু শারীরিক সমস্যাও হতে পারে । সারা রাত এয়ার কুলার চালু রাখলে আপনার নাক, মুখ, গলা এবং ত্বক শুকিয়ে যেতে পারে, কারণ এটির ইউনিটটি কেবল বাতাসকে শীতল করে না বরং এটিকে ডিহ্যুমিডিফাই করে।

একটানা কত ঘন্টা এয়ার কুলার ব্যবহার যায়?

আমরা পরামর্শ দিই যে আপনি আপনার ব্যক্তিগত এয়ার কুলারটি আনুমানিক ৪ থেকে ৬ ঘন্টা  চালু রেখে ঘন্টা খানিক বন্ধ রাখুন এবং পুনরায় চালু করুন ৷ ৩ থেকে ৬ মাসের মধ্যে, আপনার এয়ার কুলারটির প্যাড কার্টিজ প্রতিস্থাপন করতে পারেন। অবশ্যই, মনে রাখবেন যে এটি পৃথক ব্যবহারের স্তরের পাশাপাশি আর্দ্রতার অবস্থার উপর নির্ভর করে।

তবে অবশ্যই মনে রাখবেন এয়ার কুলার অতিরিক্ত ব্যবহার করে আপনার স্বাস্থের ঝুকি বাড়াবেন না। প্রতিটি ইলেকট্রনিক পণ্যের ব্যবহারে সাবধান থাকুন। ধন্যবাদ

বি:দ্র: আপনি যদি ভিশন কোম্পানির এয়ার কুলার কিনতে চান তাহলে অবশ্যই ভিশন এম্পোরিয়াম এবং ভিশন এক্সক্লুসিভ এ চলে যাবেন। তাদের নিজস্ব শোরুম থেকে কিনবেন। আমাদের দেওয়া তথ্য সম্পর্কে আপনার অভিমত প্রকাশে আমাদেরকে এখানে কমেন্ট করতে পারেন।

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *